Translate

Monday, January 20, 2020

আর কেউ বেকার থাকবে না ! সময়ের সাথে হাঁটুন। প্রচুর রোজগার।

ভার্চুয়াল এসিস্টেন্টের কেরিয়ার :- আগামী দিনের কাজের মূল সম্ভবনা

Image credit Google
গতিশীল বিশ্বে প্রযুক্তির অগ্রগতি এক বিষ্ময়কর স্টারে এসে পৌঁছেছে। প্রতিদিন নিত্যনতুন প্রযুক্তি আবিষ্কার হচ্ছে। অন্যদিকে পূর্বের তুলনায় বর্তমানে শিক্ষার পরিকাঠামোরও উন্নতি হয়েছে। ফলে বিপুল পরিমানে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা দিনকে দিন বাড়ছে। প্রযুক্তি উন্নতির সঙ্গে বেকারত্ব বাড়া ব্যাপারটা উল্টো মনে হচ্ছে না ? কারণ প্রযুক্তি বৃধ্ধি পেলে তো বেকারত্ব কোমর কথা। নতুন কর্ম সংস্থান হওয়ার কথা। না ব্যাপারটা সেরকম নয়। তথ্য প্রযুক্তির ব্যাপক উন্নতির ফলে কোনো সংস্থাই আর মোটা মাইনে দিয়ে অনুৎপাদক অলস কর্মী চাইছেনা। তার বদলে তারা সেই কাজগুলি নিলামের পদ্ধতিতে আউটসোর্স করে দিচ্ছে। দক্ষ কিন্তু বেকার সে সেই কাজ অনেকের মধ্যে থেকে বিড করে ধরে নিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে জমা দিচ্ছে।সবটাই তার বাড়ি থেকে , ল্যাপটপে বা কম্পিউটার এর সাহায্যে। কোম্পানি ও খুশি , বেকার ব্যাক্তি যে বাড়ি বসে ভালো উপার্জন করল সেও খুশি।

Image credit Google

ইউটিলিটি ডেস্ক।

কোনও সন্দেহ নেই যে প্রযুক্তি দক্ষতার সাথে কার্য সম্পাদন করতে এবং উদ্ভাবনী উপায়ে লক্ষ্য অর্জনের জন্য নতুন উপায় বের করেছে। এই ধারাবাহিকতায় ভার্চুয়াল সহকারী হিসাবে, পেশাদাররা তাদের প্রশাসনিক কাজে সংস্থাগুলিকে তাদের কাজের চাপকে অনেকাংশে হ্রাস করতে সহায়তা করছেন। এই কাজের সাহায্যে আপনি প্রতি ঘন্টায় 500 থেকে 4000 এমনকি বেশি টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

আপনি এই সাইটগুলি থেকে কাজ ধরে উপার্জন করতে পারেন

ভার্চুয়াল এসিস্টেন্ট এর অনেকগুলি কার্যকারিতা রয়েছে। এই জন্য, আপনি প্রতি ঘন্টায় অথবা প্রজেক্ট অনুযায়ী পেমেন্ট পাবেন। এই উপার্জনটি আপনার কাজের দক্ষতার উপর নির্ভর করে। দক্ষ হলে আপনি সহজেই এক ঘন্টার মধ্যে 500 থেকে 4000 টাকা উপার্জন করতে পারবেন। এর মধ্যে রয়েছে কোম্পানির অর্ডারগুলিতে নজর রাখা, সংস্থার পাওয়ারপয়েন্ট উপস্থাপনা করা, ব্যবসায়ের নথি তৈরি করা, প্রকল্প প্রস্তুত করা ইত্যাদি । এর জন্য আপনার কিছু প্রশিক্ষণের প্রয়োজনও হতে পারে। ভার্চুয়াল সহকারী হয়ে সাইটগুলিতে (Freelancer, Fiverr, Zirtual  )_সাইন আপ করে নিজের জন্য চাকরি সন্ধান করতে পারে।

ভার্চুয়াল সহকারীরা কী করে

আপনার যদি কোনও পরিস্থিতি আরও ভাল পরিচালনা করার কৌশল থাকে তবে আপনি ভার্চুয়াল সহকারী হিসাবে আপনার পরিষেবাগুলি ঐসব সাইটে অফার করতে পারেন। প্রকৃতপক্ষে ভার্চুয়াল সহকারীরা হলেন পেশাদার যাঁরা সংস্থা, ব্যবসায় এবং উদ্যোক্তাদের প্রশাসনিক সেবা প্রদানে দক্ষ। সাধারণত এই পেশাদাররা তাদের বাড়ি থেকে ফ্রিল্যান্স এ তাদের পরিষেবা সরবরাহ করে। ইন্টারনেট এবং অনলাইন বিপণন ছাড়া আজকের সময়ে কোনও ব্যবসায়ের কল্পনাও করা যায় না। এমন পরিস্থিতিতে দিনে ভার্চুয়াল সহকারীর ভূমিকা আরও গুরুত্বপূর্ণ উঠতে চলেছে ।

Image credit Google
এই ধরণের কাজের প্রোফাইলের মধ্যে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট, ওয়েবসাইট ম্যানেজমেন্ট, ইন্টারনেট ডেটা রিসার্চ, ডেটা এন্ট্রি, গ্রাফিক ডিজাইন, কল শিডিউলিং, ইমেল ম্যানেজমেন্ট, ব্লগ ম্যানেজমেন্ট, প্রুফ মডিফিকেশন, প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট, মার্কেটিং এবং পিআর। ভার্চুয়াল সহকারীদের ক্যারিয়ার অর্জনেরও ভাল সম্ভাবনা রয়েছে, কারণ আপনি একাধিক ক্লায়েন্টের কাজ একসাথেও করতে পারেন। অনলাইনে ব্যবসা করা উদ্যোক্তাদের কিছু কাজের জন্য ভার্চুয়াল সহকারীও প্রয়োজন। এমন পরিস্থিতিতে যুবকদের জন্য এই প্রোফাইলটি উদীয়মান ফ্রিল্যান্সিং পরিষেবা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

নির্ভরযোগ্যতা ক্লায়েন্ট তৈরির মূল চাবিকাঠি

ভার্চুয়াল সহকারীর ভূমিকায় সময়ের গুরুত্ব বোঝা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। আপনার নেওয়া প্রতিটি কাজের জন্য একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা দেওয়া থাকে । সময়মতো কাজ শেষ করে আপনি ক্লায়েন্টের একটি বিশ্বস্ত ভার্চুয়াল সহকারী উঠতে পারেন। এই জন্য, আপনাকে দিনের নির্দিষ্ট কয়েক ঘন্টা অফিসের মতোই বাড়িতে দিতে হবে । আপনার পরিবার এবং বন্ধুবান্ধবদেরও জানিয়ে রাখবেন যাতে তারা আপনাকে সেই সময়ে বিরক্ত না করে।নিরিবিলি পরিবেশ ও শৃঙ্খলার জন্য আপনি নিজের বাড়িতে একটি ঘরকে অফিস অফিস মনে করে নিতে পারেন ।

প্রযুক্তিগত দক্ষতার সাথে প্রস্তুতিও শেষ করা উচিত

ভার্চুয়াল সহকারী হিসাবে কাজ করার আগে দরকার নিজের দক্ষতার মূল্যায়ন করা । বিভিন্ন ধরণের ক্লায়েন্টকে মাথায় রেখে আপনার উইন্ডোজ এবং ম্যাক উভয় সিস্টেমে কাজ করা উচিত। সকল ধরণের সার্চ ইঞ্জিন, সোশ্যাল মিডিয়া বিপণন এবং ই-মেইল বিপণনের জ্ঞানও থাকা দরকার। এর সাথে সাথে, আপনার টাইপিংয়ের গতিও প্রতি মিনিটে কমপক্ষে 50 শব্দ হওয়া উচিত। কোনও বাধা ছাড়াই কাজ করার জন্য, নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি যে সিস্টেমে কাজ করছেন তার মেমরি 100 জিবি এবং র্যাম 1 এমবি এর চেয়ে কম নয়। সর্বদা দুটি ভিন্ন ধরণের ব্রাউজার ব্যবহার করুন। উচ্চ গতির ইন্টারনেট সংযোগ সহ প্রিন্টার এবং স্ক্যানারগুলি ইনস্টল করুন।

সারভাইভাল ফর টি ফিটেস্ট

সময়ের সাথে তাল মেলাতে না পারলে পৃথিবীতে টাকা যায় না। আগামী দিনটা ভালো করে বাঁচতে হলে আর গতানুগতিক চিন্তায় ভরসা রাখলে চলবে না। চিরাচরিত কর্মের জগৎ সংকুচিত হচ্ছে এবং খুব দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে। কাজেই প্রতিদিনের চাহিদার সঙ্গে মানিয়ে নিতে নিজের ধ্যান ধারণাগুলো যত দ্রুত পাল্টে নিতে পারেন তাতাই মঙ্গল। জানবেন ইন্টারনেট একটা বিশাল ক্ষেত্র। আপনার কিছুনা কিছু দক্ষতা সেখানে উপার্জন দেওয়ার জন্য বসে আছে। 











No comments:

Post a Comment

Thank You .Please do not enter any spam link in the comment box.

Don't Miss It !

LIFE LINE || Follow these tips to get out of depression

 Follow these tips to get out of depression Image credit Google Nowadays, due to increasing work stress and some personal reasons, people ge...