Translate

Tuesday, February 4, 2020

নির্ভয়া -ফাঁসির ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ রায় -আসামীদের জারিজুরি কি এবার শেষ ?

Image credit Google


গুরুত্বপূর্ণ রায় আজ দিল্লী হাই কোর্টে

নির্ভয়া মামলার এক অত্যন্ত গুরুত্যপূর্ণ রায়দান করবে আজ দিল্লী হাইকোর্ট। গত ৩১ শে জানুয়ারী দিল্লীর পাতিয়ালা হাউস কোর্ট দোষীদের ১ লা ফেব্রুয়ারী ফাঁসি কার্যকর করার উপর অনির্দিষ্ট কালের জন্য স্থগিতাদেশ দেন। গত শনিবার কেন্দ্রসরকার সেই স্থগিতাদেশকে চ্যালেঞ্জ করে দিল্লী হাইকোর্টে পিটিশন দায়ের করে। এই মামলার গুরুত্ব বুঝে দিল্লী হাইকোর্ট ছুটির দিন গত রবিবার বিশেষ শুনানীর ব্যবস্থা করেন।সেদিন হাইকোর্ট এই মামলার রায়দান স্থগিত রাখেন। নির্ভয়ার মা শ্রীমতী আশাদেবী বিচারপতিকে দ্রুত রায়দানের অনুরোধ জানান। বিচারপতি সেদিনই তাকে আশ্বাস দেন দ্রুত রায়দানের। সেই অনুযায়ী হাইকোর্ট আজ বুধবার নির্ভয়া মামলার রায় ঘোষণা করবেন বলে সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে।

দুবার ফাঁসির দিন বদল

  • এর পূর্বে গত ৭ ই জানুয়ারী দিল্লী পাতিয়ালা হাউস কোর্ট নির্ভয়া মামলার চার দোষী আসামীর জন্য মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেন। এঁবং ২২ শে জানুয়ারী সকাল ৭ টায় ফাঁসির সময় নির্ধারণ করে দেন। কিন্তু আসামীরা বিভিন্ন আইনি উপায় ও ক্ষমা প্রার্থনার আবেদনের মাধ্যমে বিলম্বের কৌশল গ্রহণ করে। ফলত তাদের ভিতর কারও কারওর আইনি রাস্তা অবশিষ্ট থাকার জন্য ২২ শে জানুয়ারীর ফাঁসি স্থগিত করে একই কোর্ট নতুন করে ১ লা ফেব্রুয়ারি সকাল ৬ টায় ফাঁসির কার্যকর করার মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেন। এক্ষেত্রেও আসামীরা একজনের পর আর একজন বিভিন্ন আইনি আবেদন সুপ্রিম কোর্ট ও মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে দায়ের করতে থাকে।সব আবেদনই খারিজ হতে থাকে।

Image credit Google
  • সর্বশেষ , ৩০ শে জানুয়ারী , ফাঁসির ঠিক ২ দিন পূর্বে , আসামী পক্ষের অ্যাডভোকেট এ পি সিং পাতিয়ালা কোর্টে ফাঁসি স্থগিতের আবেদন জানান , এবং যুক্তি দেন যে কিছু আসামীর প্রাণভিক্ষার আবেদন ও আইনি রাস্তা তখনও অবশিষ্ট আছে। পাতিয়ালা হাউস কোর্ট জেল প্রশাসনকে পরের দিন অর্থাৎ ৩১ সে জানুয়ারী বেলা ১০ টার এ বিষয়ে স্টেটাস রিপোর্ট জমা দিতে বলেন। জেল প্রশাসন জানান যে দোষী পবন গুপ্তার আবেদন একমাত্র বাকি আছে যা রাষ্ট্রপতির কাছে আছে সিদ্ধান্তের জন্য। জেল প্রশাসন আরো জানায় যে বাকি তিন জনের ফাঁসি দেওয়া যেতে পারে পরের দিন। কিন্তু আসামীপক্ষের অ্যাডভোকেট এ পি সিং জানান যে দিল্লী সরকারের মৃত্যুদণ্ড সংক্রান্ত আইনে বলা আছে একই অপরাধে দোষী একাধিক আসামির ফাঁসি একই সাথে কার্যকর করতে হবে। এই যুক্তি কোর্ট মেনে নিয়ে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ফাঁসির উপর স্থগিতাদেশ জারি করেন। এভাবে ১ লা ফেব্রুয়ারীর ফাঁসিও স্থগিত হয়ে যায়। ভরা আদালত কক্ষে আসামিপক্ষের এ পি সিং নির্ভয়ার মায়ের দিকে হুমকির শুরে বলেন যে ফাঁসি আর কোনোদিনই হবে না।

হাই কোর্টে কেন্দ্র সরকার স্থগিতাদেশকে চ্যালেঞ্জ করল

এই ঘটনায় সারা দেশজুড়ে ক্ষোভের প্রতিক্রিয়া তৈরী হয়। এবং তারপরই কেন্দ্রীয় সরকার পাতিয়ালা কোর্টের রায় কে চ্যালেঞ্জ করে দিল্লী হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়। সরকারের পক্ষে সলিসিটর জেনারেল জানান যে আসামীরা আইনি উপায়ের অপব্যবহার করছে এবং সর্বোচ্চ সময়সীমা নিয়ে ছেলেখেলা করছে। তিনি যুক্তি দেন একই মামলায় একাধিক দোষী আসামী প্রাণভিক্ষার আবেদন জানালে রাষ্ট্রপতি

Image credit Google
একেক জনের ক্ষেত্রেআলাদা সিদ্ধান্ত নিতেই পারেন। তাই কারোর আবেদন নিষ্পত্তি না হলে বা সে যদি আর আবেদন না জানান তাহলে তো কারোর ফাঁসিই আর কোনোদিন দেওয়া যাবে না। হাইকোর্ট জানতে চান দোষীদের আলাদা ফাঁসি দেওয়ার যাবে কিনা ? সরকার পক্ষে জানান হয় যে আইনি ভাবে তা সম্ভব। ইতিমধ্যে রাষ্ট্রপতি অপরাধী বিনয় শর্মার প্রাণভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন। কোর্ট সেদিনের মতন রায়দান স্থগিত রাখেন।
বুধবার ৫ই ফেব্রুয়ারী মহামান্য বিচারপতি সুরেশ কুমার কাইত ফাঁসির বিষয়ে তার রায় দেন করবেন। এখন তিনি কি রায় দেন করেন সেই দিকেই সারা দেশের নজর।

No comments:

Post a Comment

Thank You .Please do not enter any spam link in the comment box.

Don't Miss It !

LIFE LINE || Follow these tips to get out of depression

 Follow these tips to get out of depression Image credit Google Nowadays, due to increasing work stress and some personal reasons, people ge...